শিক্ষা

বিষয় ৮: পবিত্র আত্মা

[8-20] < যোহন ২০:২২-২৩ > যে ব্যক্তির অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা আছে সে অন্যকে পবিত্র আত্মা গ্রহণে উপ

< যোহন ২০:২২-২৩ >
 “তখন যীশু আবার তাহাদিগকে কহিলেন, তোমাদের শান্তি হউক, পিতা যেমন আমাকে প্রেরণ করিয়াছেন, তদ্রুপ আমি ও তোমাদিগকে পাঠাই। ইহা বলিয়া তিনি তাহাদের উপরে ফুঁ দিলেন, আর তাহাদিগকে কহিলেন, পবিত্র আত্মা গ্রহণ কর; তোমরা যাহাদের পাপ মোচন করিবে, তাহাদের মোচিত হইল; যাহাদের পাপ রাখিবে তাহাদের রাখা হইল।”
 
ঈশ্বর ধার্মিকদের কেমন
ক্ষমতা দিয়েছেন
তিনি তাহাদিগকে জল ও আত্মার
সুসমাচারের মাধ্যমে যে কোন পাপ
ক্ষমা করার ক্ষমতা দিলেন
 
 যোহন ২০ অধ্যায় যীশুর পুনরুত্থানের বিষয় সয়রক্ষন করবে। আমাদের প্রভু মৃত্যু থেকে পুনরায় জীবিত হয়ে উঠলেন এবং তাঁর শিষ্যদের বললেন, “পবিত্র আত্মা গ্রহণ কর।” যীশুর শিষ্যগণ তাঁর কাছ থেকে দান স্বরূপ অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা গ্রহণ করলেন। যীশু তাদেরকে অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা ও অনন্ত জীবন দিলেন যারা বিশ্বাস করে যে তাঁর বাপ্তিস্ম ও রক্তে তাদের সমস্ত পাপ ধৌত হয়েছে। বাইবেল বলে যে যীশুর বাপ্তিস্ম পরিত্রাণের প্রতিরূপ, যার অর্থ তাঁর বাপ্তিস্ম সকল মানব জাতিকে তাঁদের থেকে রক্ষা করে (১ পিতর ৩:২১)।
 
 
কেন যীশু বাপ্তাইজিত হয়েছিলেন?
 
 কেন যীশু যোহনের দ্বারা বাপ্তাইজিত হয়েছিলেন? এই প্রশ্নের উত্তর পরিষ্কার ভাবে মথি ৩:১৫ পদে দেখতে পারা যায়, “কেননা এইরূপে সমস্ত ধার্মিকতা সাধন করা আমাদের পক্ষে উপযুক্ত।” এখানে, “এইরূপে” অর্থ এই যে যখন তিনি বাপ্তাইজিত হয়েছিলেন তখন যীশু জগতের সমস্ত পাপ তুলে নিলেন। পুরাতন নিয়মে বর্ণিত হস্তার্পণের মত তাঁর বাপ্তিস্ম একই পথ নির্দেশ করবে। তাঁর বাপ্তিস্মের উদ্দেশ ছিল জগতের সমস্ত পাপ যীশুতে স্থানান্তরিত হওয়া।
 “সমস্ত ধার্মিকতা ” অর্থ কি? “উপযুক্ত ” শব্দ কি ইঙ্গিত করে? “সমস্ত ধার্মিকতা” অর্থ এই যে, ইহা যীশুর পক্ষে উপযুক্ত ছিল তাঁর বাপ্তিস্মের মাধ্যমে জগতের সমস্ত পাপ তুলে নেওয়া। এবং “উপযুক্ত” ইঙ্গিত করে যে এই সব ছিল ঈশ্বরের দৃষ্টিতে সর্বাধিক গ্রহণ যোগ্য ও সঠিক উপায়।
 যীশু তাঁর বাপ্তিস্মের মাধ্যমে মানব জাতির সমস্ত পাপ তুলে নিয়েছেন এবং তাঁহাকে যারা বিশ্বাস করে তাদের পাপ ক্ষমা করেছেন। যীশু তাদের পাপের জন্য বাপ্তাইজিত ও ক্রুশবিদ্ধ হয়ে বিচারিত হলেন। এই হল পাপ ক্ষমার সুসমাচার পাপের ক্ষমা হল ঈশ্বরের ধার্মিকতা যা পাপীদের সমস্ত পাপ মুছে দিয়েছে।
 যদি লোকেরা মথি ৩:১৩-১৭ পদে লিখিত যীশুর বাপ্তিসের রহস্য মনে গ্রহণ করতে পারে তবে তারা পাপের ক্ষমা ও পবিত্র আত্মা গ্রহণে সমর্থ হবে। যীশু তাঁর জনগণের যাজকত্বের কি করে ছিলেন- পূর্ব থেকে নির্ধারিত ঈশ্বর কর্ত্তৃক তাঁর বাপ্তিস্ম, ক্রুশারোপন,ও পুনরুত্থান- আমাদিগকে পরিত্রাণের উদ্দেশে ধার্মিকতার পথে চালিত করে। এভাবেই, যীশু সব পাপীদের সত্য ত্রাণকর্তা হলেন। তাঁর বাপ্তিস্ম ও রক্ত হল পরিত্রাণের সুসমাচার যা আমাদের সমস্ত পাপ ধৌত করে।
 লোকেরা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারে যখন তারা যীশুর বাপ্তিস্ম ও রক্তের সুসমাচার জ্ঞাত হয় ও বিশ্বাস করে। কারণ যীশুর বাপ্তিস্ম জগতের সমস্ত পাপভার তুলে নিয়েছেন, আমাদের পাপভার তাঁহাতে স্থানান্তরিত হল। মানব জাতির পক্ষে তাঁর ক্রুশের উপর মৃত্যু ছিল আমার নিজের মৃত্যু এবং তাঁর পুনরুত্থান আমার নিজের পুনরুত্থান। যেমন, যীশুর বাপ্তিস্ম ও ক্রুশীয় রক্ত হল পবিত্র আত্মার গ্রহণ ও পাপ ক্ষমার সুসমাচার।
 আমি আশা করি আপনি যীশুর বাপ্তিস্মের কারণ শিক্ষা করেছেন ও সুসমাচারে বিশ্বাস করেছেন তাহলে, আপনার পাপ মুছে ফেলা হবে এবং আপনি পবিত্র আত্মা গ্রহণ করবেন। কেন যীশু বাপ্তাইজিত হলেন? ইনি জগতের সমস্ত পাপ তুলে নিয়েছেন। “কেননা এইরূপে সমস্ত ধার্মিকতা সাধন করা আমাদের পক্ষে উপযুক্ত” (মথি ৩:১৫)।আমেন। হাল্লিলূয়া!
 আজ পবিত্র আত্মা গ্রহণে অনেকেই নানা ভাষায় বিশ্বাস করছে। যাহা হউক, এর সত্য প্রমাণ সুন্দর সুসমাচরে মূল্যবান বিশ্বাস মুদ্রাঙ্কিত হয়ে আছে, যারা সত্যই পবিত্র আত্মা গ্রহন করেছে।
 
 
ঈশ্বর সমস্ত ধার্মিক লোকেদের পাপ ক্ষমা করার ক্ষমতা দিয়েছেন
 
ঈশ্বর তাঁর শিষ্যদের পাপ ক্ষমা করার ক্ষমতা দিয়েছেন, বলেছেন, “তোমরা যাহাদের পাপ মোচন করিবে, তাহাদের পাপ মোচিত হইল; যাহাদের পাপ রাখিবে, তাহাদের পাপ রাকা হইল” (যোহন ২০:২৩)। ইহা নির্দেশ করে যে যখন শিষ্যগণ জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচার করত শুনত ও বিশ্বাস করত তাদের সকলের পাপ ক্ষমা হত। যাহা হউক, এর অর্থ এই নয় যে জল ও আত্মার সুসমাচারে তাদের বিশ্বাসে অবহেলা হেতু তারা কারো পাপ ক্ষমা করতে পারেন।
 যীশুর শিষ্যদের জল ও আত্মার সুসমাচারের মাধ্যমে পাপ ক্ষমা করবার ক্ষমতা আছে। সে কারণে আমরা ইহাতে অবশ্যই বিশ্বাস করব যদি তারা যা লিখিত হয়েছে তা শিক্ষা করে। আপনি অবশ্যই বিশ্বাস করবেন যে আপনার সমস্ত পাপ ক্ষমার জন্য যীশু খ্রীষ্ট আপনাকে জল ও আত্মা সুসমাচার দিয়েছেন। কেবল তখন আপনি পাপের ক্ষমা ও অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা পেতে পারেন। যীশু আমাদের জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচারের দ্বারা সমস্ত লোকেদের তাদের পাপ থেকে রক্ষা করার ক্ষমতা দিয়েছেন।
 
 
জগতের শাসনকর্তাদের ক্ষমতা
 
 অতীতে, আমি যেখানে বাস করতাম, আমরা একটি কাঁচা রাস্তা দিয়ে বাসে করে যাচ্ছিলাম। এক স্থানে এসে লোকেরা বাস থেকে নামল এবং ইহা ধাক্কা দিয়ে পাহাড়ের দিকে উঠাতে লাগল। এক সময় কোরীয় প্রেসিডেন্ট ঐ রাস্তায় তাপ শক্তি প্রকল্প উদ্বোধন করতে এলেন। লোকেরা যখন এই সংবাদ শুনল তারা প্রেসিডেন্টকে স্বাগতম জানাতে রাস্তা পরিষ্কার করল এবং এর পাশ দিয়ে গাছ গুলিকে সাজিয়ে দিল। যখন সেই দিন আসল, মটর সাইবেল আরোহীরা পত প্রদর্শক হল এবং প্রেসিডেন্টর গাড়ী তাদের পিছনে আসল জনতা জাতীয় পতাকা হাতে তাঁকে অভিবাদন জানাতে বের হয়ে আসল। তখন তারা প্রেসিডেন্ট কে স্মরণ করিয়ে বললেন, “এই রাস্তা অত্যন্ত ঝুকিপূর্ণ, এটা পাকা করা প্রয়োজন।” কয়েকদিন পরে এ্যাসফাল্ট দ্বারা রাস্তাটি পাকা করা হল।
 এখানে কি ঘটল? একজন প্রেসিডেন্ট কে স্মরণ করিয়ে দেওয়াতে রাস্তার অবস্থা ভয়ানক ভাবে পরিবর্তন হয়ে গেল। প্রেসিডেন্ট তাঁর মহা ক্ষমতা বলে আদেশ করলেন। যাহা হউক, আমরা ভাল ভাবে সতর্ক ইহ যেন খ্রীষ্টের অদ্বিতীয় ক্ষমতা দ্বারা আমাদিগকে জল ও আত্মার সুসমাচারের নিশ্চয়তা দিয়ে থাকেন। আমরা অবশ্যই বিশ্বাস করি যে এই সুসমাচার আমাদের জীবন ব্যাপীরা আমাদের সমস্ত পাপ থেকে আমাদিগকে মুক্ত করিয়া থাকেন।
 
 
পাপ ক্ষমা করিবার সত্য কর্ত্তৃকারী
 
“যদি তোমরা কারো পাপ ক্ষমা কর, তবে তাদের পাপ ক্ষমা করা।হইবে; যদি কারো পাপ রাখ তবে তাদের পাপ রাকা হইবে।” যীশুর শিষ্যগণ সুসমাচার প্রচার করলেন যে তাদের সমস্ত পাপ ক্ষমা হইল। তারা লোকেদের বললেন, যীশু তাঁর বাপ্তিস্ম ও রক্তের দ্বারা জগতের সমস্ত পাপ মুছে দিয়েছেন। উদ্বগ্ন হওয়ার কিছুই নেই। যদিও আপনার ভবিষ্যতের পাপ পূর্ব হতে নির্ধারিত ছিল। যীশু ইতি মধ্যে আপনার প্রতি দিনের পাপ গুলি তুলে নিয়েছেন এবং যোহনের দ্বারা বাপ্তাইজিত হওয়ার পর আপনার জন্য ক্রুশে রক্ত ঝরিয়েছেন। যীশু আপনাকে রক্ষা করেছেন আপনি অবশ্যই ইহা বিশ্বাস করেন।
 যীশুর শিষ্যদের মাধ্যমে জল ও আত্মার সুসমাচার শ্রবণ ও বিশ্বাসের দ্বারা পাপীগণ পাপের ক্ষমা পেয়েছেন। যীশু শিষ্যদের জল ও আত্মার সুসমাচারের মাধ্যমে পাপ ক্ষমা কর্ত্তৃক দিয়েছেন। কারণ যীশুর শিষ্যগণ পৃথিবীর সমস্ত লোকদের কাছে আত্মার সুসমাচার প্রচার করবেন। বিশ্বাসীগণ পাপের ক্ষমা গ্রহণ করতে পারবেন, যীশু তাহাদিগকে যীশু এই দান প্রশংসা করবার কর্ত্তৃত্ব নিশ্চয়তা দিয়েছেন।
 অনেক রৈকা এই বই গুলি পড়েছে যা আমি পূর্বে প্রকাশ করেছিলাম, এবং ও গুলো পড়ার পর তারা তাদের পাপ থেকে রক্ষা পেয়েছে। কেহ কেহ তাদের উপলব্ধি মেনে নিয়েছে যে যীশুর ক্রুশীয় মৃত্যুর কারণ ছিল তাঁর বাপ্তিস্মের ফল স্বরূপ জগতের সমস্ত পাপ তুলে নেওয়া, “তিনি আমাদের অধর্মের নিমিত্ত বিদ্ধ, আমাদের অপরাধের নিমিত্ত চূর্ণ হইলেন (যিশাইয় ৫৩:৫)।
 তাঁর পুনরুত্থানের পর যীশু তাঁর শিষ্যদের বললেন, “পবিত্র আত্মা গ্রহণ কর, তোমরা যাহাদের পাপ মোচন করিবে, তাহাদের মোচিত হইল, যাহাদের পাপ রাখিবে, তাহদের রাখা হইল” (যোহন ২০:২১-২৩), যীশু তাহাদিগকে লোকেরা ক্ষমা করিবার ক্ষমতার নিশ্চয়তা দিলেন।
 এই সত্য বিশ্বাস করবার পূর্বে আমরা বিশৃঙ্খলা, শূণ্যতা, এবং পাপের দ্বারা আবদ্ধ ছিলাম। যাহা হউক এখন আমরা যীশুর বাপ্তিস্ম ও রক্তে বিশ্বাস করেছি এবং পাপ থেকে মুক্ত হয়েছি, আমরা এই সুসমাচার অন্যের কাছে প্রচার করেছি। অধিকন্তু, আমাদের প্রভু তাঁর শিষ্যদের শান্তি দিয়েছেন, আমাদের প্রভু আমাদেরও শান্তি দিয়েছেন এবং পবিত্র আত্মার আশীর্বাদ ও দিয়েছেন। ঈশ্বর থেকে শান্তি ও পবিত্র আত্মা গ্রহণ করেছি, যীশুর বাপ্তিস্ম ও ক্রুশীয় রক্তে বিশ্বাস করে আমাদের পাপের ক্ষমা গ্রহণ করা আবশ্যক।
 জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস আমাদিগকে পাপ থেকে কি ভাবে মুক্ত করে। ইহা আধ্যাত্মিক বিশ্বাস যা আমাদিগকে স্বর্গীয় পবিত্রতা এনে দেয়। কিন্তু স্বেচ্ছারী বিশ্বাসের উপরে ভিত্তি করে মানুষ নিজের চিন্তা-ভাবনা দ্বারা চালিত হয়ে ধংশের দিকে ধাবিত হচ্ছে। আমরা অবশ্যই জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস দ্বারা পাপের ক্ষমা পেয়ে থাকি এবং এরূপে আমরা পবিত্র আত্মা পেয়ে থাকি। এরূপ বিশ্বাসের কারণে আমরা অবশ্যই পার্থিব চিন্তা-ভাবনা দ্বারা চালত হই এবং জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাসের প্রতি ফিরে আসি।
 পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে এরূপ বিশ্বাস থাকা প্রয়োজন। কেহ এই সুসমাচার গ্রহণ করতে পারে যা যীশু আমাদিগের জন্য বাপ্তাইজিত ও ক্রুশোরোপিত হয়েছিলেন। ঈশ্বর আমাদিগকে পাপের ক্ষমা, শান্তি ও অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা দ্বারা চালিত করেন কারণ আমরা জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস করি তিনি তাঁর শিষ্যগণকে অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা দিয়েছেন এবং যে কেহ জল ও আত্মার সুসমাচার বিশ্বাস করে তাদের পাপ ক্ষমা করবার ক্ষমতা দিয়েছেন।
 আমরা এই সুসমাচারে বিশ্বাস করে পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারি, জল ও আত্মার সুসমাচার অনেককে এরূপ করতে সাহায্য করতে পারে যখন আমরা আমাদের প্রতিবেশীদের কাছে ও পৃথিবীতে সুসমাচার প্রচার করি, যারা ইহা অন্তরে গ্রহণ করে তাদেরকে পবিত্র আত্মার নিশ্চয়তা দেওয়া হয়। যদি সুসমাচার যা প্রচারে লোকেদের পবিত্র আত্মা গ্রহণে সমর্থ করতে পারি না, তাহলে ইহা সত্য সুসমাচার নয়। অন্যদিকে, যদি আমরা সুসমাচার প্রচার দ্বারা লোকদের পবিত্র আত্মা গ্রহণে চালিত করতে পারি তাহলে সুসমাচার সত্য। এরূপ সুসমাচারের জন্য আমরা কিরূপ পবিত্র কৃতজ্ঞ হবে। সুসমাচার যা আপনি এবং আমি পওচার করে থাকি তা কিরূপ পবিত্র ও বিশুদ্ধ। কিন্তু দূর্ভাগ্যক্রমে, ইহা একজন ব্যক্তিকে খুঁজে পেতে কত কঠিন যিনি সত্যই আজ এই সুসমাচার জানেন ও বিশ্বাস করেন। সে কারণে আমরা অবশ্যই সমস্ত জগতে এই সুসমাচার প্রচার করব। আমরা অবশ্যই লোকেদের পবিত্র আত্মা গ্রহণে সাহায্য করব।
 
 
যারা জল ও আত্মার সুসমাচার অস্বীকার করছে তারা শয়তান কর্ত্তৃক প্রতারিত
 
 যারা ইতি মধ্যে যীশুতে বিশ্বাস করেছে আমরা তাদের সাহায্য করছি। অনেকেই আছে যারা যীশুতে বিশ্বাস করে অথচ এখন ও পবিত্র আত্মা গ্রহণ করে নি। আমরা সুসমাচার প্রচারের দ্বারা তাদের সাহায্য করছি এবং এরূপ তাদের পবিত্র আত্মা পেতে সাহায্য করছি। যদি কোন মানুষ পবিত্র আত্মা গ্রহন করে নি অথচ যীশুতে বিশ্বাস করে তবে তাঁর বিশ্বাসে সমস্যা আছে। যীশুতে বিশ্বাসের মাধ্যমে যারা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করেছে তাদের সত্য বিশ্বাসের অধিকারী রূপে বিবেচনা করবেন। আমরা অবশ্যই পবিত্র আত্মা গ্রহণে আমাদিগকে চালিত করতে বিশ্বাস স্থির থাকব। আমরা অবশ্যই জল ও আত্মার সুসমাচার জ্ঞাত হবে। কারণ কেবল এই সুসমাচারের সত্যে আমরা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে সমর্থ হই।
 আমরা জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচার করি যেন অন্যেরা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারে। যাহা হউক, যারা সুসমাচার প্রচার করে তারা অনেক বাধার সম্মুখিন হতে বাধ্য কয়েকজন খ্রীষ্টিয়ান মনে করে সময়ের সন্দিক্ষণে তাদের কাজের দ্বারা তারা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারে। তাদের অনেক লোক এলোমেলো অভিজ্ঞতা আছে যেন তারা অপ্রাসঙ্গিক ভাবে পবিত্র আত্মা গ্রহণ করে থাকে। একপি দীর্ঘ সময় এরূপ উৎস্বর্গীকরণের প্রয়োজন হওয়াতে জল ও আত্মার সুসমাচার দ্বারা তাদেরকে শিক্ষা দেওয়া হয়।
 কে জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস করবে না, যদি প্রত্যেকে ভাবে যে কেহ এই সুসমাচারে বিশ্বাসের মাধ্যমে পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারে? সত্য সুসমাচারে আসার পূর্বে শয়তান ভিন্ন সুসমচার দ্বারা লোকেদের সঙ্গে প্রতারণা করে। এরূপ লোকেরা বিশ্বাসের আধিক্য হেতু যখন তারা ইতিমধ্যে যীশুর সুসমাচারে বিশ্বাসে নিজদিগকে বিবেচনা করতে থাকে, সে কারণে তারা জল ও আত্মার সুসমাচার অস্বীকার ও প্রত্যাখ্যান করে।
 এইদিনে এবং এই যুগে অধিকাংশ লোক জল ও আত্মার সুসমাচারের সত্য পূর্ণ রূপে গ্রহণ করে না, কারণ শয়তান ইতিমধ্যে তাদের অন্ধকারে দিয়েছে। ফলে, তারা যীশুকে সাধারণ ভাবে বিশ্বাস করে। যাহা হউক, পূর্ণভাবে বোঝার ক্ষেত্রে সুসমাচারের সত্য মোটেই সহজ নয়। জল ও আত্মার সত্য সুসমাচার ভ্রান্ত সুসমাচার দ্বারা কবলিত হয়।
 লোকেরা চিন্তা করে যে, যে কেহ স্বর্গরাজ্যে প্রবেশ করতে পারে যদি তারা র্গীজাতে উপস্থিত হয় এবং দৃঢ় কণ্ঠে স্বীকার করে যে তারা যীশুতে বিশ্বাস করে। অনেকে বিশ্বাস করে যে তাদের নিজেদের কাজের মাধ্যমে অর্থাৎ প্রার্থনা ও উপবাসের মাধ্যমে অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা দিতে রাজী হয়। যাহা হউক, এরূপ বিশ্বাস পবিত্র আত্মা গ্রহণের সথ্য কথা বলা ও অন্যান্য অলৌকিক কাজ পবিত্র আত্মা গ্রহণের চিহ্ন।
 এই রূপে তারা পবিত্র আত্মা গ্রহণের বিষয় প্রায় বুঝতে পারে না, ইহা জল ও আত্মার সত্য সুসমাচারের বিশ্বাসের প্রয়োজনীয়তা। যাহা হউক, বাইবেল বলে যে কেহ ঈশ্বরের বাক্যে বিশ্বাস দ্বারা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারে। ঈশ্বর তাঁর বাক্যে পবিত্র আত্মা গ্রহের রহস্য লুক্কায়িত রেখেছিলেন।
 
 
অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা যারা চায়
 
 আমি এক সময় আমাদের কয়েকজন কার্য্যকারী নিয়ে তাইওয়ান গিয়েছিলাম, সেখানে লোকরা আমাদের কাছে পবিত্র আত্মা বই চাইল। এই একই জিনিস ঘটেছিল জাপান ও রাশিয়াতে। ফলে অনেক লোক অন্তরে বাসকারী আত্মার বই চাইল, স্বাগ্রহে গ্রহণ করতে চায়। অনেক লোকেরা যীশুতে বিশ্বাস করে এবং অনিশ্চত হয়ে মুহুর্তে তারা সত্যই পবিত্র আত্মা গ্রহণ করে থাকে, কারণ তাদের অন্তরে বাসকারী আত্মা নেই।
 এমন অনেক লোকে আছে যারা যীশুতে বিশ্বাস করে এবং বলে যে তারা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করেছে। যাহা হউক, লোকেরা যারা স্থায়ী ভাবে পবিত্র আত্মা গ্রহণ করেছেন যা অনন্তাকালে কদাচিৎ অনেক লোক তাদের যীশুতে বিশ্বাস থাকা সত্ত্বেও এরূপ করতে অসমর্থ এবং এই কারণে তারা ইহা করতে উৎসুক।।
 খ্রীষ্টিয় জগতের মধ্যে অনেক লোকে আছে যারা ভাবে যে তাদের পবিত্র আত্মার অভিজ্ঞতা আছে। কেহ কেহ বলে যে তাদের স্বপ্নের মাধ্যমে তারা যীশুর সম্মুখিন হয়েছিল; এবং কেহ কেহ বলে তাদের মধ্যে পবিত্র আত্মা আছে কারণ তাদের শয়তান তাড়বার অভিজ্ঞতা আছে। এইরূপে অনেক লোক আছে যাদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে বিশ্বাস আছে। যাহা হউক, সামন্য কিছু আছে। যারা জল ও আত্মার সুসমাচারের মাধ্যমে অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা সত্যই গ্রহণ করে থাকে।
 আমি ভেবে বিস্মিত হচ্ছিলাম যে জল ও আত্মার সুসমাচার খাটি বিশ্বাসের মাধ্যমে অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা গ্রহণের কোন বই এই পৃথিবীতে ছিল না। অনেক লোক পবিত্র আত্মা সম্পর্কে তাদের অভিজ্ঞতার বিষয় বলছিল, কিন্তু কেন অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মার কোন বই নেই? এরূপ বই খুঁজে পাওয়া কঠিন যদিও আপনি সারা পৃথিবীতে দূরে ও কাছে দেখে থাকেন।
 যারা ভুল ভাবে জোর দিয়ে বলে যে তারা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করে বলে যে তারা যীশুর সঙ্গে সাক্ষাত করেছে এবং স্বর্গ রাজ্যে ও নরক দেখেছে। তারা জোর দিয়ে বলে যে যীশু বলেন, কালের পূর্ণতার সম্মুখবর্তী হয়েছেন। আপনি আপনার পৃথিবীতে অনেক বেশী বিভূসিত হয়েছেন, সুতরাং আপনি যে অবস্থানে ছিলেন, সেখান থেকে তাড়াতাড়ি ফিরে আসুন।এরূপ অভিজ্ঞতা অসম্ভব নয়। যাহা হউক, ঐ যীশুকে তারা প্রকৃত যীশুর সম্মুখিত করতে পেরেছেন? যখন তাদের অন্তর পাপে পূর্ণ ছিল তখন কি যীশু তাদের সঙ্গে সাক্ষাত করতে এসেছেন? যীশু কি একজন পাপীর মধ্যে অপেক্ষা করেন?
 ইহা সত্য যে, আজ অনেক খ্রীষ্টিয়ানের অন্তরে বাসাকারী পবিত্র আত্মা নেই। যদিও তারা যীশুতে বিশ্বাসের পরিমান দ্বারা চালিত হয়। সে কারণে আমাদের যাদের মধ্যে পবিত্র আত্মা আছে, তারা অবশ্যই সুসমাচার প্রচার করবে যে অন্যকে এই দান গ্রহণে চালিত করবে। প্রত্যেকেই পবিত্র আত্মা গ্রহণ করা প্রয়োজন। এবং সেই রূপ করা আবশ্যক, জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস থাকা আবশ্যক। ফলে কেবল সুসমাচারে বিশ্বাস করে পবিত্র আত্মা গ্রহণ করা প্রয়োজন। সত্যের সুসমাচারের মাধ্যমে যেন আমরা সব জ্ঞাত হই, আমরা ঈশ্বরের কাছ থেকে পবিত্র আত্মার দান রূপে গ্রহণ করতে পারি।
 আমরা অবশ্যই সকলে আমাদিগকে জল ও আত্মার সুসমাচার প্রদান করার জন্য আমরা ঈশ্বরের ধন্যবাদ ও প্রশংসা করব। আমার পবিত্র আত্মাতে আনন্দের অভিজ্ঞতা আছে যখন তিনি আমাকে এই বই লেখার জন্য আমাকে অধিকতর শক্তিশালী করেন। যখন এই বই প্রকাশিত হল, অনেক লোক জল ও আত্মার সুসমাচারে তাদের বিশ্বাসের মাধ্যমে অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে সক্ষম হবে। “যখন আপনি বিশ্বাস করেছিলেন তখন কি পবিত্র আত্মা গ্রহণ করেছিলেন?” (প্রেরিত ১৯:২) পৌল ইফিষীয়তে শিষ্যদের বলেছিলেন।
 আমরা সকলে অবশ্যই পবিত্র আত্মা গ্রহণ করব। সমস্ত বিশ্ব জুড়ে পৃথিবীর ইতিহাস এই দাঙ্গা হাঙ্গামার সময় খ্রীষ্টিয়ানরা বিশেষ ভাবে পবিত্র আত্মা গ্রহণে উৎসাহী। আমি পবিত্র আত্মা গ্রহণে বাইবেলীয় পথে প্রচার করছি, ঠিক যেমন ভাবে পবিত্র আত্মা আমাকে চালিত করে। সন্তোষজনক জীবন-যাপনে আপনি অবশ্যই অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মার সত্যে বিশ্বাস করবেন। আপনার অন্তরের গভীরে পবিত্র আত্মা এটাই শেষ সুযোগ।
 প্রত্যেককে পবিত্র আত্মা গ্রহণে সাহয্য করতে আমি সুসমাচার প্রচারে বাধ্যতা অনুভব করছি কারণ যীশু খ্রীষ্ট আমাকে জল ও আত্মার সুসমাচার দিয়েচেন এবং পবিত্র আত্মার দান আমাকে উইল করে দিয়েছেন।
 
 
পরজাতীয়দের জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস থাকা আবশ্যক
 
 বাইবেলে বর্ণনা করা হয়েছে কিভাবে যীশুর শিষ্যগণ অন্যদের অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা গ্রহণে অনুপ্রাণিত করেছে। এমনকি পরজাতীয়গণ শিষ্যদের মত পবিত্র আত্মা গ্রহণে একই বিশ্বাস রক্ষা করেছিল, তাছাড়া, পরজাতীয়দের জল ও আত্মার সুসমচারে বিশ্বাস থাকা বিশেষ প্রয়োজন ছিল, ঈশ্বরের রাজ্যে প্রবেশের জন্য যা শিষ্যদের বিশ্বাসও ছিল। সে কারণে, আমরা, যারা পরজাতীয়, পবিত্র আত্মা গ্রহণে সুসমাচারের সত্যে বিশ্বাস থাকা আবশ্যক ঈশ্বর পিতরকে কর্ণেলিয়ামের কাছে পাঠিয়েছিলেন, যিনি একজন পরজাতীয় ছিলেন, তিনি জল ও আত্মার সুসমাচার দ্বারা আলোকিত হয়েছিলেন যা পবিত্র আত্মা গ্রহণে প্রয়োজন ছিল।
 যিহুদী বিশ্বাসীগণ পবিত্র আত্মার দানের কথা শুনে আশ্চর্য্যন্বিত হয়েছিলেন যা পরজাতীয় গণকে পবিত্ৰীকৃত করেছিল। যখন পিতর জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচার করার পর যিরুশালেম মন্ডলীতে ফিরে এসেছিলেন, তখন ছিন্নত্বক লোকেরা তাঁকে তিরস্কার করল। “তুমি অছন্নত্বক লোকেদের গৃহে প্রবেশ করিয়াছ, ও তাহাদের সহিত আহার করিয়াছ” (প্ররিত ১১:৩)। কিন্তপিত প্রথম থেকে যা কিছু ঘটেছিল তা তাদের কাছে বর্ণনা করলেন।
 তার ব্যাখ্যা প্রেরিত ১১:৫-১৭ পদের অর্ন্তভূক্ত। “‘আমি যাফো নগরে প্রার্থনা করিতে ছিলাম, এমন সময়ে অভিভূত হইয়া এক দর্শন পাইলাম, দেখিলাম, একখানা বড় চাদরের মত কোন পাত্র নামিয়া আসিতেছে, তাহা চারি কোণে ধরিয়া আকাশ হইতে নামাইয়া দেওয়া হইতেছে, এবং তাহা আমার নিকট পর্য্যন্ত আসিল। আমি তাহার প্রতি একদৃষ্টে চাহিয়া চিন্তা করিতে লাগিলাম, আর দেখিলাম, তাহার মধ্যে পৃথিবীর চতুষ্পদ জন্তু, আর বন্য পশু, সরীসৃপ ও আকাশের পক্ষী সকল আছে; আর আমি এক বাণীও শুনিলাম, যাহা আমাকে বলিল, উঠ, পিতর, মার, খাও। কিন্তু আমি কহিলাম, প্রভু, এমন না হউক; কেননা অপবিত্র বা অশুচি কোন দ্রব্য কখনও আমার মুখের ভিতর প্রবেশ করে নাই। কিন্তু দ্বিতীয় বার আকাশ হইতে বাণী উত্তর করিল, ঈশ্বর যাহা শুচি করিয়াছেন, তুমি তাহা অপবিত্র বলিও না। এইরূপ তিনবার হইল; পরে সে সমস্ত আবার আকাশে টানিয়া লওয়া হইল। আর দেখ, অবিলম্বে তিন জন পুরুষ, যে বাটীতে আমরা ছিলাম, তথায় আসিয়া দাঁড়াইল; তাহারা কৈসরিয়া হইতে আমার নিকটে প্রেরিত হইয়াছিল। আর আত্মা আমাকে সন্দেহ না করিয়া তাহাদের সহিত যাইতে বলিলেন। আর এই ছয় জন ভ্রাতাও আমার সহিত গমন করিলেন। পরে আমরা সেই ব্যক্তির বাটীতে প্রবেশ করিলাম। তিনি আমাদিগকে বলিলেন যে, তিনি এক দূতের দর্শন পাইয়াছিলেন, সেই দূত তাঁহার গৃহমধ্যে দাঁড়াইয়া কহিলেন, যাফোতে লোক পাঠাইয়া শিমোন, যাহাকে পিতর বলে, তাহাকে ডাকাইয়া আন; সে তোমাকে এমন কথা বলিবে, যাহা দ্বারা তুমি ও তোমার সমস্ত পরিবার পরিত্রাণ প্রাপ্ত হইবে। পরে আমি কথা কহিতে আরম্ভ করিলে, যেমন প্রথমে আমাদের উপরে হইয়াছিল, তেমনি তাঁহাদের উপরেও পবিত্র আত্মা পতিত হইলেন। তাহাতে প্রভুর কথা আমার স্মরণ হইল, যেমন তিনি বলিয়াছিলেন, ‘যোহন জলে বাপ্তাইজ করিতেন, কিন্তু তোমরা পবিত্র আত্মায় বাপ্তাইজিত হইবে।’ অতএব, তাঁহারা প্রভু যীশু খ্রীষ্টে বিশ্বাসী হইলে পর, যেমন আমাদিগকে, তেমনি যখন তাঁহাদিগকেও ঈশ্বর সমান বর দান করিলেন, তখন আমি কে যে ঈশ্বরকে নিবারণ করিতে পারি?”
 পিতর বললেন যে তিনি কেবল অছিন্নত্বক লোকের বাড়িতে যাননি তাদের সঙ্গে আহার করেছেন; তিনি তাদেরকে আর ও বললেন পবিত্র আত্মার তত্ত্বাবধানে সুসমাচারের জন্য ধন্যবাদ যখন তারা এই সকল বিষয় শুনিলেন তখন তারা নীরব হইয়া রহিলেন, তারা ঈশ্বরের গৌরব করিলেন, যিনি অনুতাপ স্বীকার করেছেন এবং কর্ণেলিয়, তাঁর আত্মীয়স্বজন এবং তাঁর নিকটতম বন্ধুদের মত জীবনে প্রবেশ করেছেন।
 
 
পবিত্র আত্মা গ্রহণের নিমিত্ত প্রৈরিতিক সুসমাচার
 
প্রেরিত গণের বিশেষ
গুরুত্বপূর্ণ কাজ কি?
পবিত্র আত্মা গ্রহণের পক্ষে জল ও
আত্মার সুসমাচার প্রচার করা।
 
 প্রেরিতগণ কি বাস্তবিক জল ও আত্মার সুসমাচারে প্রচার করেছিলেন? আমরা অবশ্যই প্রথমে নিশ্চিত হবে যে প্রেরিদ পিতর জল ও আত্মার বিশ্বাস করতে চায়। বাইবেলে পিতর বলেন, “আর এখন উহার প্রতিরূপ বাপ্তিস্ম, আমাদিগকে এখন রক্ষা করে”(১ পিতর ৩:২১)। প্রেরিত পিতর সত্যই বিশ্বাস করতেন যে যখন তিনি বাপ্তাইজিত ও ক্রুশে হতে হলেন তখন যীশু সব পাপ থেকে রক্ষা করলেন। তিনি আর ও বিশ্বাস করেন যে যখন যীশু বাপ্তাইজিত হলেন (মথি ৩:১৫) সব পাপ তাঁর উপরে স্থানান্তরিত হল, যে তিনি ক্রুশারোপিত হলেন এবং আমাদের রক্ষার নিমিত্ত পুনরুত্থিত হলেন।
 এই দিন গুলিতে এমন লোক আছে যারা পিতরের মত একই বিশ্বাস করেন। যারা জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচার করেন যেমন পিতর একই সুসমাচার প্রচার করেছিলেন। এই সত্য শ্রবণ কারীদের অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা গ্রহণে অনুপ্রাণিত করে।
 যখন পিতর জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচার করেছিলেন তখন অনেক লোক পবিত্র আত্মা গ্রহণ করেছিল। যখন আমরা একই সত্য প্রচার করি তখন আমরা দেখতে পাই লোকেরা সুসমাচর বিশ্বাস করছে ও পবিত্র আত্মা গ্রহণ করছে। একজন ব্যক্তি অস্পষ্ট বিশ্বাসে পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারে না যে সে স্বর্গে যাবে যদি সে যীশুকে কেবল তাঁর প্রভু হিসাবে বিশ্বাস করে তবে জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস করা আবশ্যক।
 পিতর ভুমিতে হাঁটা ছার পেকার তুল্য অনেক ক্ষুদ্র বিষয়ে পরজাতীয়দের বিবেচনায় এনেছিলেন যীশুর বাপ্তিস্ম, ক্রুশীয় মৃত্যু ও পুনরুত্থান পূর্বে তারা অশুচি পশুর ন্যায় ছিল। যাহা হউক এমন কি পরজাতীয়গণ জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস দ্বারা অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মার আশীর্বাদ লাভ করেছে। সুতরাং এক স্বর পিতরকে বলল, “ঈশ্বর যাহা শুচি করিয়াছেন, তুমি তাহা অপবিত্র বলিও না।” (প্রেরিত ১০:১৫)।
 আমরা পরজাতীয়গণের মত, কখনো পবিত্র আত্মা গ্রহণে যোগ্য হতাম না কিন্তু জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস দ্বারা অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা পেয়েছি। যখন আমরা সুসমাচার প্রচারে সহিষ্ণু ছিলাম, লোকেরা তাদের নিজস্ব চিন্তা-ভাবনায় পরিপূর্ণ ছিল। আমরা দেখতাম তারা সুসমাচারে বিশ্বাস করছে এবং অবশেষে পবিত্র আত্মা গ্রহণ করছে। আমরা তাদেরকে স্বীকার করতে দেখতাম যে যীশুর বাপ্তিস্ম ও রক্তে বিশ্বাস করে তাদের অন্তরে পাপ নেই। কেবল তখন পবিত্র আত্মা তাদের মধ্যে বাস করত।
 আমাদের এই সুসমাচার প্রচার করার উদ্দেশ্য অন্যদের বুঝবার জন্য নয় কিন্তু পবিত্র আত্মা গ্রহণে চালিত করবার জন্য। বস্তুত যারা সুসমাচার বিশ্বাস করে যা অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে তাদের পাপ ক্ষমার জন্য আমরা প্রচার করছি। এবং বাস্তব অবস্থা এই যে তারা অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে একই সময়ে অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা গ্রহণ করেছে। আমরা কেবলমাত্র পৃথিবীর লোকেরা কাছে সুসমাচার প্রচার করি নাই কিন্তু আর ও পদক্ষেপ গ্রহন করেছি এবং তাদের কে একই সময়ে পবিত্র আত্মা গ্রহণে চালিত করেছি।
 যাদের প্রয়োজন আছে, তাদের কাছে আমরা অবশ্যই জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচার করব। যদি আমরা সাধারণভাবে প্রচার করে ক্ষান্ত হই, তবে আমাদের সমস্ত পরিশ্রম ব্যর্থ হয়ে যাবে। আমরা। অবশ্যই সতর্ক হবে যেন এই সুসমাচার অন্যকে পবিত্র আত্মা পেতে সাহায্য করে। যখন আমরা সুসমাচার প্রচার করি, মনে রাখতে হবে যে, পবিত্র আত্মার আগুন সমগ্র পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়বে।
 যখন একজন সুসমাচার প্রচারক বিশ্বাস করেন যে এই সুসমাচার সমগ্র পৃথিবীর লোকেদের পবিত্র আত্মা গ্রহণে উপদেশ দেয়, তিনি তীক্ষ্মভাবে সর্তকতাঁর সাথে অনুভব করেন যে যীশু খ্রীষ্টেতে বিশ্বাস করতে লোকেদের উৎসাহিত করতে তাঁর যাজকত্ব সাধারণ বিষয় নয়। কিন্তু অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা গ্রহন করতে তাদেরকে সাহায্য করে। সে কারণে এই সময়ে জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচার করা আমাদের পক্ষে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
 কারো তাঁর কান দিয়ে মনোযোগ সহকারে শ্রবণ করা প্রয়োজন এবং তাঁর অন্তরে সুসমাচার বিশ্বাস করা যা আমরা পবিত্র আত্মা গ্রহণের নিমিত্ত প্রচার করি। সুসমাচার যা আমরা প্রচার করছি তা লোকেদের জীবনে পরিষ্কার ভাবে মহা প্রভাব বিস্তার করে। সুসমাচারের ক্ষমতা, কর্ত্তৃত্ব ও পবিত্র তা ঈশ্বর দ্বারা প্রদত্ত হয়েছে।
 পিতর ছিলেন যিহুদীদের সুসমাচার প্রচারক, কিন্তু পৌল ছিলেন পরজাতীয়গণের জন্য নিযুক্ত। যখন পিতর ছাদে বসে প্রার্থনা করছিলেন, তিনি দেখলেন স্বর্গ খুলে গেল এবং বড় একটি চাদরে চারিকোন ধরে তাঁর সামনে নামিয়ে দেওয়া হল। এর মধ্যে ছিল সকল প্রকার অশুচি জীব জন্ত যা বাইবেলে খেতে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।
 পিতর কখনো কোন সাধারণ বা অশুচি খাবার গ্রহন করে নি।যাহোক, ঈশ্বর তাঁকে আদেশ করলেন মারো এবং খাও। পিতর অস্বীকার করলেন,
বললেন,“না প্রভু, আমি কখন ও বোন সাধারণ ও অশুচি খাবার গ্রহণ করি নাই।”তখন একটি কণ্ঠস্বর তাঁকে বলল,“ঈশ্বর যাকে পবিত্র করেছেন, তুমি অবশ্যই তাঁকে সাধারণ বলিও না” ইহা কি ইঙ্গিত করে? ঈশ্বর বলেন যে যীশু জগতের তথা পরজাতীয়গণের সকল পাপ ধূয়ে দিয়েছেন যখন তিনি বাপ্তইজিত ও ক্রুশে হত হলেন।
 ঈশ্বরের আদেশে অশুচি জীব-জন্ত মেরে খাওয়ার আধ্যাত্মিক অর্থে পিতরকে এই শিক্ষা দওেয়া হয়েছিল যে পরজাতীর গণও যীশুকে এই জগতে পাঠান হয়েছিল, বাপ্তাইজিত হয়ে আমাদের সমস্ত পাপ তুলে নিলেন ও তাদের জন্য বিচারিত হয়ে ক্রুশারপিত হলেন এই বিশ্বাস দ্বারা ঈশ্বরের সন্তান হতে পারেন।
 কিন্তু পিতর অনুতপ্ত হলেন ও বিশ্বাস করলেন যে ঈশ্বর ইতিমধ্যে পরজাতীয়গণের পাপ ও ধৌত করেছেন। পিতর গভীর ভাবে সুন্দর সুসমাচারের নিগুঢ়তত্ত্ব উপলব্ধি করতে সক্ষম হলেন। তিনি দেখতে পেলেন যখন তিনি ঈশ্বরের বাক্য প্রচার করছিলেন তখন তাঁর শ্রবণ কারীদের উপর পবিত্র আত্মা পতিত হয়েছিল।
 বর্তমান কালের সুসমাচার প্রচারক গণ পবিত্র আত্মা পেয়েছে কিনা তা আমরা কিভাবে বিচার করব? ইহা নির্ভর করছে তারা কিভাবে জল ও আত্মার সুসমাচার গ্রহণ করল তাঁর উপর। কোন ব্যক্তি সুন্দর সুসমাচার বিশ্বাস করেন যে ভাবে আছে সে ভাবে যখন একজন সুসমাচার প্রচারক ঈশ্বরের বাক্য প্রচার করেন, তখন তারা অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা সুসমাচার প্রচারকের অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা গ্রহণ করে থাকেন। পবিত্র আত্মা সুসমাচার প্রচারকের অন্তরে বাস করে থাকেন, ওতাঁর মধ্যে বাস করতে আসেন। সুসমাচার প্রচারক ও শ্রোতার মধ্যে শৈশক কালেরন্ধর ন্যায় পরস্পর সহযোগীতা গড়ে ওঠে। তারা পরস্পর প্রতীক্ষারত থেকে ঈশ্বরের প্রেম দেখবে। সুসমাচার দেখবে জল ও আত্মার সুসমাচার গ্রহণের দ্বারা শ্রোতারা ঈশ্বরের জাতিতে পরিণত হবে।
 যখন আমরা সুসমাচার প্রচার করি, আমরা দেখতে পাই পবিত্র আত্মা বিশ্বাসীদের উপরে নেমে আসে যত তাড়াতাড়ি তারা জল ও আত্মার সুসমচারে বিশ্বাস করে। এটা পরিত্রাণ থেকে ভিন্ন অভিজ্ঞতা নয়। ওটা প্রাথমিক কারণ কেননা আমরা অবশ্যই জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচার করব। যে সুসমাচার আমরা প্রচার করি তা অন্যকে পবিত্র আত্মা গ্রহণে চালিত করে।
 যাদের অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা আছে তারাই ঈশ্বরের সন্তান। জল ও আত্মা সুসমাচার কোন সম্প্রদায়ের কাল্পনিক মতবাদ নয়, এবং সেকারণে যখন আমরা অন্যের কাছে এটা প্রচার করি তারা বিশ্বাস করে, পবিত্র আত্মা গ্রহণ করে এবং ঈশ্বরের সন্তানে পরিণত হয়। এটা কেমন মহা পবিত্রতা? এ কেমন বিস্ময়কর সুসমাচার! আর কেমন চমৎকার তাঁর কার্য্যসকল! যারা জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচার করে তারা ঈশ্বরের রাজ্য তৈরীতে সাহায্য করে। আমরা কেবল সুসমাচার প্রচার করি, কিন্তু তারা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করে।
 কিছু লোক চিন্তা করে যীশুতে বিশ্বাস করা এক বিষয় এবং পবিত্র আত্মা গ্রহণ অন্য বিষয়। সে কারণে খ্রীষ্টিয়ান এখন পবিত্র আত্মার জন্য প্রার্থনা করে, বাইবেল বলে যে, পবিত্র আত্মা তাদের উপরে নেমে আসে যখন তারা শ্রবণ করে এবং তাঁর দাসগণের দ্বারা পরিচালিত সুসমাচারে বিশ্বাস করে। পৃথিবীর সমস্ত লোকেরা পবিত্র আত্মা পেতে চায়। সুসমাচার যা আমরা প্রচার করি, তাদের ইচ্ছার সন্তুষ্টি অনুসারে তাদেরকে পরিচালিত করে। এই জন্য সমস্ত জগতে সুসমাচার প্রচার করতে আমাদের দায়িত্ব আছে। আমরা পিতার সন্তান ও তাঁর উত্তরাধিকারী, যারা তাঁর মহানুগ্রহে বিশ্বস্ত।
 আমরা অবশ্যই বিশ্বাসে সুসমাচার প্রচার করব যখন মনে রাখব যে আমাদের বিশেষ কাজ পবিত্র আত্মা গ্রহণে লোকেদের অনুপ্রাণিত করবে। জল ও আত্মা সুসমাচার অন্যদের কাছে প্রচার করার আগে সুসমাচার প্রচারকদের সত্যই বিশ্বাস করা আবশ্যক। তখন তাদের শ্রোতাগণ তাদের সুসমাচারে বিশ্বাসের মাধ্যমে পবিত্র আত্মা গ্রহন করবে। এইভাবে আমরা যারা সুসমাচারে বিশ্বাস করি আমরা অনন্ত জীবন লাভ করতে পারি। আমাদের লক্ষ্য হল অন্ধকারের ক্ষমতা থেকে তাদেরকে মুক্ত করা ও ঈশ্বরের রাজ্যের অধিকরী করা। সুসমাচার প্রচারক পাপীকে অন্ধকারের কর্ত্তৃত্ব থেকে ঈশ্বরের পুত্রের যে রাজ্যে স্থানান্তর করে। পাপীকে ঈশ্বরের সন্তানরূপে স্থানান্তর করা একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ কাজ।
 অনেক লোক পবিত্র আত্মা গ্রহণের চাবি বা মূল বিষয়, কি তা জানে না, বরং তাদের নিজেদের কাজের দ্বারা তাঁকে গ্রহণ করত করে। যাহোক, ইহা নিষ্ফল প্রমাণিত হবে। কেবল মাএ সুসমাচারে বিশ্বাস থাকা প্রয়োজন বিশ্বাসের কারণে কেহ সকল পাপ থেকে মুক্ত হতে পারে।
 আপনি কিভাবে পবিত্র আত্মা গ্রহণ করেছিলেন? প্রার্থনার মাধ্যমে? অথবা সম্ভবত হস্তার্পনের মাধ্যমে? না উহা সঠিক উপায় নয়। আমরা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করেছিলাম কেবল যখন আমরা জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস করে ছিলাম। আমাদের সুসমাচার প্রচার ও সেই সঙ্গে প্রার্থনা করা আবশ্যক তাহলে জগতের সমস্ত লোক পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারবে।
 “প্রেরিত” শব্দের অর্থ “যিনি ঈশ্বর কর্ত্তৃক প্রেরিত হয়েছেন। ” প্রেরিতদের কাজ কি? তারা জল ও আত্মার সুসমাচার প্রচার করে যেন লোকেরা পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারে। আপনি কি আমাদের সঙ্গে এরূপ একটি কাজে অংশ গ্রহন করতে পছন্দ করেন না? আমাদের সকলেরই সকল লোকেদের কাছে প্রচার করতে অন্তরে বাসকারী পবিত্র আত্মা থাকা আবশ্যক হাল্লিলূয়া! সুসমাচারের সম্পূর্ণ সত্যের প্রশংসা করি যা ঈশ্বর আমাদিগকে পবিত্র আত্মা গ্রহণের নিমিত্ত দিয়েছেন।