খ্রীষ্টীয় বিশ্বাসের উপরে যে প্রশ্নগুলি প্রায়শই করা হয়ে থাকে

বিষয় ১: জল ও আত্মা হতে নুতন জন্ম প্রাপ্ত হওয়া

1-11. যোহন বাপ্তাইজক যিনি যীশুকে বাপ্তিস্ম দিয়েছিলেন, তিনি কে ছিলেন?

মোশির মাধ্যমে ঈশ্বর ব্যবস্থা দিয়েছিলেন এবং প্রায়শ্চিত্তের জন্য বলিদানের প্রথা দিয়েছিলেন যেন আমরা পাপ ও অধর্ম থেকে মুক্ত হতে পারি। তিনি মোশির ভাই হারোণকে মহাযাজক হিসাবে অভিষেক করেছিলেন। সপ্তম মাসের দশম দিনে মহাযাজকে প্রায়শ্চিত্তের বলি উৎসর্গ করতেন যেন ইস্রায়েল জাতি গত এক বছরের পাপ ধুয়ে যায় (লেবীয় ১৬ অধ্যায়) ঈশ্বর এটা নির্ধারণ করে দিয়েছিলেন যে, হারোণের উত্তরসূরীরাই প্রায়শ্চিত্তের বলি উৎসর্গ করতে পারবে। ঈশ্বরই ইস্রায়েলদের জন্য এই নিয়ম স্থির করেছিলেন যে হারোণ এবং তার বংশধরেরা প্রায়শ্চিত্তের বলির উপরে হস্তার্পণ করবে যেন সম্পূর্ণ পাপ ঐ বলির উপরে বর্তায় এটাই ছিল ঈশ্বর কর্তৃক নির্ধারিত প্রায়শ্চিত্তের ব্যবস্থা। এটা আমাদের পরিস্কারভাবে জানা উচিত যে, যীশুই মানব জাতির ত্রাণকর্তা। যোহন বাপ্তাইজক ছিলেন নূতন নিয়মের যুগে হারোণের বংশধর, পুরাতন নিয়মে মহাযাজক। যোহন বাপ্তাইজক ছিলেন ঈশ্বরের ভাববাদী, মানব জাতির প্রতিনিধি ও মহাযাজক, তিনি ঈশ্বর পুত্র যীশু খ্রীষ্টকে বাপ্তাইজিত করেন। যোহন বাপ্তাইজক যীশুর উপরে সমস্ত পাপেরভার অর্পণ করেন। 
যোহন বাপ্তাইজকের দ্ধারা সমস্ত মানুষের পাপেরভার বর্তানোর ফলে সমস্ত মানুষ আশির্বাদ প্রাপ্ত হয়েছে। সকল মানুষের পক্ষে যোহন মহাযাজকের ভূমিকা পালন করেছেন। যিনি ঈশ্বরের দাস হিসাবে আমাদের সকল পাপ যীশুর উপরে অর্পণ করেছেন।
যীশুর জন্মের ছয় মাস পূর্বে সংবাদ বাহক হিসাবে, সকল মানুষের পতিনিধি ও মহাযাজক হিসাবে ঈশ্বর যোহন বাপ্তাইজককে জগতে পাঠিয়েছিলেন। অন্য কথায়, যীশু যখন যোহন বাপ্তাইজকের কাছে বাপ্তিস্ম গ্রহন করলেন, বাপ্তিস্মের মাধ্যমে যীশু জগতের সকল মানুষের পাপ নিজ কাঁধে তুলে নিলেন। যোহন বাপ্তাইজক ঈশ্বরের দাস ও মহাযাজক হিসাবে যীশুর উপরেই জগতের পাপভার অর্পণ করলেন।