Search

পুস্তক সমলোচনা

যেসব মানুষেরা আমাদের বই পড়েছেন তারা নিম্নলিখিত সমলোচনাগুলি পাঠিয়েছেন৷ আমাদের আশা এই যে সেগুলির মাধ্যমে, আপনারা সবাই একে অপরের সাথে ঈশ্বরের যে অনুগ্রহ আমাদেরকে জল ও আত্মা হতে জন্মগ্রহণ করতে সক্ষম করেছে তা ভাগ করে নেবেন৷ আমরা আপনার পোষ্টটিকে অনুমোদন করলে তবেই আপনার পোষ্টটি দেখা যাবে৷

একটি বার্তা পোষ্ট করুন
মোট 6
  • সংখ্যা 6

    পবিত্র আত্মা আমার অন্তরে বাস করেন - আপনার জন্য পবিএ আত্মায় পূর্ণ হওয়ার অব্যর্থ উপায়

        পবিত্র আত্মা! খ্রীষ্টীয় বিশ্বাসের একটি বৃহৎ প্রশ্ন৷ পবিত্র আত্মা কে? একজন বিশ্বাসী কিভাবে তাঁকে প্রাপ্ত করতে পারে?  খ্রীষ্টীয় বিশ্বাসের মধ্যে এই প্রশ্নগুলি অনেক বিভ্রান্তির মূল৷ মানুষ কি পাপের ক্ষমা গ্রহণ না করেই পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারে? অনেক মন্ডলী তাদের বিশ্বাসীদের শিক্ষা দেয় যে তারা উচ্চস্বরে প্রার্থনা করবার দ্বারা পবিত্র আত্মা প্রাপ্ত করতে পারে৷ তাই তারা আর্তনাদ করতে শুরু করে দেয়৷ পবিত্র আত্মা কর্তৃক অভিষিক্ত হওয়ার চিহ্নগুলি কী কী? কিছু মন্ডলী শিক্ষা দেয় যে পরভাষায় কথা বলাই নাকি সেই অভিষেকের একমাত্র নিদর্শন৷ তারা উদ্দীপনা সভাগুলিতে একত্রিত হয়, এবং চিত্কার করা, আর্তনাদ করা, লম্ফঝম্ফ করা আরম্ভ করে, যেগুলি কোনো কোনো ক্ষেত্রে তাদের মুর্চ্ছা যাওয়ার কারণ হয়ে দাঁড়ায়৷ কিন্তু এগুলি কি বাইবেল সম্মত? পবিত্র আত্মা গ্রহণ করবার সম্পর্কে বাইবেল আমাদের কী শিক্ষা দেয়?আপনি যদি আপনার পাপ থেকে মুক্ত না হন, তাহলে আপনি পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারেন না৷ কিন্তু কিভাবে পাপশূন্য হওয়া যেতে পারে? আদৌ কি সেটি সম্ভব? বাইবেল আমাদের শিক্ষা দেয় যে একজন ব্যক্তি জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস করবার দ্বারা পাপশূন্য হতে পারে৷ সেইরূপে সেই ব্যক্তি পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারে৷ এই বইটিতে বিষয়টি সবিস্তারে আলোচনা করা হয়েছে৷Santanu Bhattacharyya, India

    • Santanu Bhattacharyya
    • India
    • 06/20/2022164
  • সংখ্যা 5

    জল ও আত্মার সুসমাচারের প্রতি ফিরে আসুন

    এই বইটি এই ধারাবাহিক বইয়ের সিরিজের প্রথম বইটির পরবর্তী খন্ড৷ ঈশ্বর মানুষকে সৃষ্টি করেছিলেন কিন্তু মানুষ পাপ করেছিল ও ঈশ্বরের গৌরব বিহীন হয়েছিল৷ সুতরাং প্রতিটি মানুষের নুতন জন্ম প্রাপ্ত করা প্রয়োজন৷ কিন্তু প্রশ্ন হলো সেই নুতন জীবন কিভাবে অর্জন করা যায়? নুতন জন্ম লাভের পথ হলো জল ও আত্মা হতে সেই জন্ম প্রাপ্ত করা৷এই জলের তাত্পর্য কী? এর তাত্পর্য হলো যীশুর বাপ্তিস্ম৷ এই বইটির মধ্যে যোহন বাপ্তাইজক কর্তৃক যীশুর বাপ্তাইজিত হওয়ার কারণ আলোচনা করা হয়েছে৷ এই বই থেকে আপনি জানতে পারবেন যে যীশু কেবলমাত্র তাঁর নম্রতা প্রদর্শন করবার জন্য বাপ্তিস্ম গ্রহণ করেন নি৷ আপনি কি নোহের সময়ের জলপ্লাবনের সাথে যীশুর বাপ্তিস্মের যোগসূত্র বুঝতে চান? তাহলে বইটি পাঠ করুন৷আপনি কি এই কথা চিন্তা করে আশ্চর্য বোধ করেন যে জগৎ থেকে কেন জল ও আত্মার সুসমাচার বিলীন হয়ে গিয়েছিল? সুসমাচারের উপর মিলানের অনুশাসনের প্রভাব কী ছিল? বইটির লেখক এই বইটিতে প্রতিটি বিষয়কে তুলে ধরেছেন৷Santanu Bhattacharyya, India      

    • Santanu Bhattacharyya
    • India
    • 06/19/2022110
  • সংখ্যা 4

    পবিত্র আত্মা আমার অন্তরে বাস করেন আপনার জন্য পবিত্র আত্মায় পূর্ণ হওয়ার অব্যর্থ উপায়

    পবিত্র আত্মা আমার অন্তরে বাস করেন আপনার জন্য পবিত্র আত্মায় পূর্ণ হওয়ার অব্যর্থ উপায়খ্রীষ্ট ধর্মের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য আলোচিত বিষয় ধার্ম্মিকের পরিত্রাণ এবং অন্তরে বসবাসকারী পবিত্র আত্মা৷পাপ থেকে পরিত্রাণ এবং পবিত্র আত্মাতে জীবন যাপন বিষয় দুটি হচ্ছে খ্রীষ্টধর্মে সর্বাপেক্ষা আলোচিত বিষয়। কিন্তু খুব কম লোকেরই এই দুটি বিষয় সম্বন্ধে প্রকৃত জ্ঞান রয়েছে, অথচ বিষয় দুটি খীষ্টধর্মের সবচেয়ে গুরুতপূর্ণ দুটি দিক। যাইহোক, বাস্তবে লোকে বলে। তারা যীশু খ্রীষ্টকে বিশ্বাস করে, কিন্তু আসলে পাপের প্রায়শ্চিত্ত এবং পবিত্র আত্মা সম্বন্ধে তারা অজ্ঞ।যে সুসমাচারের মাধ্যমে পবিত্র আত্মা লাভ করা যায়, আপনি কি সেই সুসমাচার জানেন ? ঈশ্বরের কাছ থেকে পবিত্র আত্মা অবতরনের জন্য এবং পবিত্র আত্মায় জীবন যাপন করার জন্য প্রার্থনা করতে চাইলে আপনাকে প্রথমে অবশ্যই জল ও আত্মর সুসমাচার সম্পর্কে জানতে হবে এবং তাতে বিশ্বাস করতে হবে। নিশ্চিতভাবে এই বইটি সারা পৃথিবীর সমস্ত খ্রীষ্টিয়ানদেরকে পাপের ক্ষমা এবং পবিত্র আত্মা লাভের জন্য সহায়তা করবে।এই বইয়ে, সুন্দর সুসমাচারে বর্ণিত জল ও আত্মা বিষয়ক সুসমাচার বিবেচনার জন্য সম্পূর্ণ করছে-যা আমাদিগকে অন্তরে বাসকারী – পবিত্র আত্মা  দিতে রাজী হয়েছেন।আপনি কি জল ও আত্মা বিষয়ক সুসমাচার জ্ঞাত আছেন, যা আপনাকে পবিত্র আত্মার দান স্বরূপ দিতে স্বীকৃত হয়েছেন? যদি আপনি বাস্তবিক পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে ইচ্ছুক থাকেন, আপনাকে অবশ্যই প্রথমতঃ, এ বিষয়ে বাস্তব এক সঠিক জ্ঞান পেতে হবে। আপনি কি এই সুসমাচার জানেন, যা আপনাকে পবিত্র আত্মা পেতে সাহায্য করবে? যদি আপনি অন্তরে বসবাসকারী পবিত্র আত্মার জন্য ঈশ্বরের কাছে যাচ্ঞা করেন, তাহলে প্রথমে আপনাকে অবশ্যই এই বিষয়ে বাস্তব ও সঠিক জ্ঞান পেতে হবে এবং এই বিশ্বাস ধরে রাখতে হবে। ইহা আপনাকে সুন্দর সুসমাচারের মধ্য দিয়ে জল ও আত্মা দ্বারা সমস্ত পাপ হতে পবিত্র করে। আপনাকে এটা করতে সাহায্য করে, আপনাকে জল ও আত্মার সুসমাচারের সঠিক জ্ঞানে অগ্রসর হতে হবে। কেবল মাত্র তখন আপনি এই  জ্ঞান সত্য বলে গ্রহণ করে, পবিত্র আত্মায় পূর্ণ হবেন।আপনি, যদি এই সত্য বিশ্বাস করেন তবে নিঃসন্দেহে অপনার অন্তরে বসবাসকারী পবিত্র আত্মাকে গ্রহণ করবেন। জল ও আত্মার সুসমাচারের জ্ঞান যা প্রভু সমস্ত মানবজাতিকে দিয়েছেন, আপনাকে পবিত্র আত্মার আশীর্ব্বাদের মধ্যে এনেছেন। তাই পবিত্র আত্মা আপনার হৃদয়ে সর্বসময়ের জন্য বসবাস করতে চান এবং তখনই আপনি একজন প্রকৃত প্রভুর শিষ্য হতে পারেন। আপনি, যদি জানেন এবং জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস করেন, জলের উনুই সদৃশ্য আপনার অন্তরে-বসবাসকারী-পবিত্র আত্মাকে ধন্যবাদ দিতে দিতে শান্তিময় এবং আনন্দময় জীবন যাপন করবেন। বর্তমান কালীন সমাজে, অধিকাংশ লোক জল এবং আত্মার সুসমমাচারের সত্য সম্বন্ধে অজ্ঞ, এবং তাদের ভ্রান্ত গুরুদের দেওয়া ভুল শিক্ষায় বিভ্রান্ত।“কার মধ্যে পবিত্র আত্মা বাস করে ?”আজ অধিকাংশ খ্রীষ্টিয়ানগণ অন্তরে বসবাসকারী পবিত্র আত্মার বিষয়ে মূল ধারনা থেকে বিচ্যুতি হয়েছে। তারা একগুয়েমি ভাবে বিশ্বাস করে যে , এমন কি কেহ পাপের ক্ষমা না পেলে ও পবিত্র আত্মা গ্রহণ করতে পারে। বাইবেল অনুসারে জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস ব্যাতিত কেহই অন্তরে বসবাসকারী পবিত্র  আত্মাকে পেতে পারে না।আপনি কি ভাবছেন ? যদি আপনার মধ্যে পাপ থাকে, যদিও আপনি যীশুতে বিশ্বাসী, আপনি কি ভাবছেন পবিত্র আত্মা আপনার মধ্যে বাস করবেন ? আপনি কি নিশ্চিত যে আত্মা আপনার মধ্যে আছে, তা পবিত্র আত্মা?আপনি এই সত্য জেনে রাখবেন যে, ঈশ্বর পবিত্র আত্মাকে আপনার মধ্যে বাস করার অনুমতি দিবেন, যখন কেবলমাত্র জল ও আত্মার সুসমাচারে আপনার বিশ্বাস থাকবে। অতএব, পবিত্র আত্মাকে  গ্রহণ করার শর্তে আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে এবং সময় অন্তঃকরনের সহিত জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস করতে হবে। সম্পূর্ন নিশ্চয়তার সঙ্গে আমি আপনাকে বলতে পারি যে, এটাই সত্য। যদি আপনি বাইবেলের এই সত্য গ্রহণ করেন তাহলে আমি আপনার সমগোত্রিয় হব, পবিত্র আত্মা নিশ্চিতভাবেই আপনার মধ্যে বাস করবেন।আমি আপনাকে বলতে চাচ্ছি যে, আপনি আপনার সমস্ত  অন্তঃকরনের সহিত জল এবং আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাসী হোন। তখন আপনি প্রভুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন এবং অন্তরে-বসবাসকারী পবিত্র আশীর্ব্বাদে পূর্ন হবেন। যারা জল ও আত্মার  সুসমাচারে বিশ্বাস করে, তারা পবিত্র আত্মার আশীর্ব্বাদে পূর্ন হয়।Rahul Mondal, India

    • Rahul Mondal
    • India
    • 06/09/2022103
  • সংখ্যা 3

    আসুন, আমরা জল ও আত্মার সুসমাচারের কাছে ফিরে আসি।

    ধর্মতত্ত্ব বা কোন মতবাদ আমাদের উদ্ধার করতে পারেনা। অনেক খ্রীষ্টিয়ান এগুলো অনুসরণ করে কিন্তু নূতন জন্ম লাভ করেনা। এই বইয়ের মধ্যে আমরা জানতে পারবো ধর্মতত্ত্ব বা মতবাদের ভিতরে কি ভুল রয়েছে এবং সবচেয়ে সঠিক উপায়ে কিভাবে যীশুকে বিশ্বাস করতে হয়।বাইবেলে স্পষ্টরূপে বলা হয়েছে যে, পাপের পথ এতই প্রশস্ত যে, অনেকেই সেই পথে যায়, কিন্তু জীবনের পথ খুবই সংকীর্ণ, খুব অল্পলোকেই তা অনুসরণ করে৷ এই বইটি আমাদের জীবনকে সত্য পথে ও সত্য বিশ্বাসে চালিত হতে সাহায্য করবে৷সত্য সুসমাচার কি?সত্য সুসমাচার হল ঈশ্বরের একজাত্র পুত্র যীশু খ্রীষ্ট মানুষ বেশে এই পৃথিবীতে এসেছিলেন এবং সমগ্র মানব জাতি প্রতিনিধি যোহন বাপ্তাইজকের দ্বারা যর্দ্দন নদীতে বাপ্তাইজিত হয়েছিলেন৷ তিনি পৃথিবীর সমস্ত পাপভার নিজের উপর তুলে নিয়েছিলেন, এবং সেই পাপ নিয়ে ক্রুশে মৃত্যুবরণ করেছিলেন, যেন পৃথিবীর সমস্ত মানুষ তাদের পাপ থেকে এবং শেষ বিচার থেকে রক্ষা পায়৷ এই জন্য বাইবেল বলে, “কারণ ঈশ্বর জগৎকে এমন প্রেম করিলেন যে, আপনার একজাত পুত্রকে দান করিলেন, যেন, যে কেহ তাঁহাতে বিশ্বাস করে, সে বিনষ্ট না হয়, কিন্তু অনন্ত জীবন পায়।” (যোহন ৩:১৬)৷ এটা ঈশ্বরেরই সংকল্প যেন আমরা এই সত্যে বিশ্বাস করি যে, যীশু খ্রীষ্ট তাঁর বাপ্তিস্মের মাধ্যমে এবং ক্রুশীয় মৃত্যুতে সেচিত রক্তের মাধ্যমে আমাদের সমস্ত পাপ ধুয়ে দিয়েছেন যেন আমরা ঈশ্বরের সন্তান হতে পারি৷ যীশু খ্রীষ্ট এই পৃথিবীতে এসে আমাদের সকলের জন্য পাপার্থক বলি হয়েছিলেন এবং জগতের সমস্ত পাপ নিজের কাঁধে তুলে নেওয়ার জন্য তিনি যোহন বাপ্তাইজকের দ্বারা যর্দ্দন নদীতে বাপ্তিস্ম নিয়েছিলেন৷ তারপরেই কেবল তিনি তার রক্ত দ্বারা সে পাপের মূল্য পরিশোধ করেছেন৷ এটাই সত্য সুসমাচার৷ বাইবেল আমাদের বলে যে, “কেবল জল দ্বারা নয়, কিন্তু জল ও রক্ত দ্বারা” যীশু খ্রীষ্ট এই পৃথিবীতে এসেছিলেন এবং আত্মাই সাক্ষ্য দিচ্ছেন যে, যীশুই ঈশ্বর, এবং এই তিনের “আত্মা ও জল ও রক্ত, এবং সেই তিনের সাক্ষ্য একই।”    (১ যোহন ৫:৬-৮)৷ যারা এই শিষ্য যোহনের সত্য বিশ্বাসে বিশ্বাস করে তারা জগতকে জয় করতে পারে৷সত্যিকারের আলো প্রকাশিত হলে অন্ধকার দূর হয়ে যায়৷ আলো ও অন্ধকার এক সাথে থাকতে পারে না৷ বর্তমান যুগ মন্দতার অন্ধকারে যতই আচ্ছন্ন হউক না কেন, আপনার হৃদয় যতই গোলোযোগপূর্ণ বা শূণ্য হোক না কেন, যে মুহূর্তে আপনি হৃদয় দিয়ে জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস দ্বারা নূতন জন্ম লাভ করবেন, তখনই সত্যে আলোয় আপনার হৃদয় পূর্ণ হয়ে যাবে৷ “কারণ যে ঈশ্বর বলিয়াছিলেন, ‘অন্ধকারের মধ্য হইতে দীপ্তি প্রকাশিত হইবে,’ তিনিই আমাদের হৃদয়ে দীপ্তি প্রকাশ করিলেন, যেন যীশু খ্রীষ্টের মুখমন্ডলে ঈশ্বরের গৌরবের জ্ঞান-দীপ্তি প্রকাশ পায়” (২ করিন্থীয় ৪:৬)৷পাপের পরিত্রাণ ইতিপূর্বেই সাধিত হয়ে গেছে৷ স্বর্গের দরজা খোলা রয়েছে৷ যে কেউ সত্য বাক্যে মনোযোগ করলে এবং বাইবেল অনুসারে জল ও আত্মার সুসমাচারে বিশ্বাস করলে নিজেকে শয়তানের মিথ্যা সুসমাচার থেকে এবং সমস্ত পাপ থেকে রক্ষা করতে পারে৷ সে ঈশ্বরের আশীর্ব্বাদ লাভ করে স্বর্গ রাজ্যে প্রবেশ করতে পারে৷ ঈশ্বর আন্তরিকভাবে আমাদেরকে আহ্বান করছেন, বলছেন, “অহো, তৃষিত লোক সকল, তোমরা জলের কাছে আইস; যাহার রৌপ্য নাই, আইসুক; তোমরা আইস, খাদ্য ক্রয় কর, ভোজন কর; হাঁ, আইস, বিনা রৌপ্যে খাদ্য, বিনা মূল্যে দ্রাক্ষারস ও দুগ্ধ ক্রয় কর” (যিশাইয় ৫৫:১)৷  আসুন, আমরা সকলে “জল ও আত্মার সুসমাচার” এর প্রতি ফিরে আসি৷  আসুন আমরা ঈশ্বরের আসন্ন বিচার এড়াই এবং তাঁর অনুগ্রহ এবং আশীর্ব্বাদের রাজ্যে প্রবেশ করি।Rahul Mondal, India

    • Rahul Mondal
    • India
    • 06/09/202299
  • সংখ্যা 2

    আপনি কি সত্যই জল ও আত্মা হতে নূতন জন্ম প্রাপ্ত?

    এই বইটির মূল বিষয় হল “জল ও আত্মা হতে নূতন জন্ম প্রাপ্ত হওয়া”৷ এই বইটিতে এই বিষয়ের উপর মৌলিক আলোচনা রয়েছে৷ অন্য কথায়, এই বইটি বাইবেলের সাথে কঠোরভাবে সঙ্গতি রেখে আমাদের স্পষ্টরূপে বলে যে নূতন জন্ম আসলে কি এবং কিভাবে জল ও আত্মা হতে নূতন জন্ম লাভ করা যায়৷ জল হলো, যর্দ্দন নদীতে যীশুর বাপ্তিস্মের প্রতীক এবং বাইবেল বলে যে যীশু যখন যোহন বাপ্তাইজক কর্তৃক বাপ্তাইজিত হয়েছিলেন, তখন আমাদের সকল পাপ তাঁর প্রতি অর্পিত হয়েছিল৷ যোহন সকল মানবজাতির পাপ মুক্তির প্রতিনিধি হিসাবে নিযুক্ত হয়েছিলেন। তিনি মহাযাজক হারোণের বংশধর ছিলেন৷ ঠিক যেমন প্রায়শ্চিত্তের দিনে হারোণ বলিদানের ছাগ বা মেষের মস্তকে হস্তার্পণ করতেন ও ইস্রায়েলীয়দের বাৎসরিক সকল পাপ সেই ছাগ বা মেষের উপরে অর্পন করতেন৷ আর সেটিই ছিল আগামীতে আগত উত্তম বিষয়ের প্রতিচ্ছায়া৷ যীশুর বাপ্তিস্ম হস্তার্পনের প্রতিরূপ এই যে, তিনি সমগ্ৰ মানবজাতির পাপের জন্য উত্তম ছাগ বা মেষ রূপে বলিদানের জন্য প্রস্তুত হলেন। কেবলমাত্র বাৎসরিক পাপ বলিদানের সীমিত সময়ের জন্য নয় বা কোনো বিশেষ জাতী ও সম্প্রদায়ের জন্য নয় কিন্তু যীশু খ্রীষ্ট যোহন কতৃক বাপ্তিস্ম হস্তার্পনের দ্বারা চিরতরে সকল মানবজাতির পাপভার নিজ স্কন্ধে তুলে নিলেন ও ক্রুশে বলিকৃত হলেন। যেনো আমরা আর পাপের শৃঙ্খলে আবদ্ধ না থাকি। তিনি তাঁর বলির মাধ্যমে প্রত্যেক মানুষকে পাপের পক্ষে স্বাধীন করলেন। এই স্বাধীনতা আমরা কোনো সংগ্ৰাম, যোগ্যতা বা ধার্ম্মিক গুনে প্রাপ্ত হয়নি কিন্তু এটা ছিল  মানবজাতির জন্য যীশু খ্রীষ্টের অসীম প্রেম, দয়া ও অনুগ্রহ। আমরা কেবলমাত্র এই বাস্তব ঘটনা বিশ্বাসের মাধ্যমে যীশুর প্রেম, দয়া ও অনুগ্রহ লাভ করতে পারি। যর্দ্দন নদীতে যীশু হস্তার্পনের রূপে বাপ্তাইজিত হয়েছিলেন৷ সুতরাং তিনি তাঁর বাপ্তিস্মের মাধ্যমে জগতের সকল পাপ লাঘব করেছিলেন এবং সেই সকল পাপের নিমিত্ত মূল্য দেওয়ার জন্য ক্রুশারোপিত হয়েছিলেন৷ কিন্তু অধিকাংশ খ্রীষ্টবিশ্বাসীরা জানে না যে যীশু কেন যর্দ্দন নদীতে যোহন বাপ্তাইজক কর্তৃক বাপ্তাইজিত হয়েছিলেন৷ এই বইয়ের মূল কথা এবং জল ও আত্মার সুসমাচারের অপরিহার্য অংশ হল যীশুর বাপ্তিস্ম৷ আমরা কেবলমাত্র যীশুর বাপ্তিস্ম ও তাঁর ক্রুশে আত্মবলিদান এবং পুনরুত্থানের বিশ্বাস দ্বারা নূতন জন্ম লাভ করতে পারি৷ Rahul Mondal, India

    • Rahul Mondal
    • India
    • 06/09/2022101